এখন পড়ছেন
হোম > খেলা > বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে কি হতে পারে ভারতের সাম্ভাব্য প্রথম একাদশ? কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা?

বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে কি হতে পারে ভারতের সাম্ভাব্য প্রথম একাদশ? কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা?

জমজমাট বিশ্বকাপ – গ্রূপ লীগের খেলা শেষ, এবার লড়াই সেমিফাইনাল ও ফাইনালের। প্রত্যাশা মতোই এবার সেমিফাইনালে গেছে ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড। ফর্ম ও কন্সিস্টেন্সি যদি দেখা যায় – এই মুহূর্তে বিশ্ব ক্রিকেটের সেরা ৪ দলই সেমিফাইনাল খেলছে। এর মধ্যে ভারতের খেলা নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে। প্রতিপক্ষকে দুরমুশ করে দিয়ে ভারত গ্রূপের সেরা হলেও, মিডল অর্ডার ও বোলিং কম্বিনেশন নিয়ে চিন্তা রয়েই গেছে।

ফলে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে কি হতে পারে প্রথম একাদশ তাই নিয়ে শুরু হয়েছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। তবে প্রথম একাদশের প্রথম তিনটি স্লট নিয়ে কোনো চিন্তা বা বিতর্কই নেই, যদি না হঠাৎ করে চোট আঘাত এসে না পরিকল্পনা বিগড়ে দেয়। ওপেনিংয়ে রোহিত শর্মা পাঁচ-পাঁচটি সেঞ্চুরি করে আগুনে ফর্মে। অন্যদিকে শিখর ধাওয়ান চোটের জন্য ছিটকে যাওয়ার পর, সেখানে চমৎকার মানিয়ে নিয়েছেন কেএল রাহুলও। এতদিন বড় রান এলেও, সেঞ্চুরি ফস্কে যাচ্ছিল। শ্রীলঙ্কা ম্যাচে সেইটাও পুষিয়ে দিয়েছেন তিনি। গোলে ওপেনিংয়ে রোহিত-রাহুল জুটি ভাঙার কোনো প্রশ্নই নেই।

এরপর তিন নম্বরে আসবেন ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’ স্বয়ং অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এই বিশ্বকাপে বেশ ভালো ফর্মেই রয়েছেন তিনি, ফলে তাঁর নিজের পছন্দের জায়গা থেকে আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ের সেরা ব্যাটসম্যানকে সরানোর কোনো প্রশ্নই নেই। কিন্তু, এরপরেই শুরু হচ্ছে নড়বড়ে মিডল-অর্ডার। ৪ নম্বরে এখনও ভরসা দেবার মত কাউকে না পাওয়া গেলেও ঋষভ পন্থকে যেভাবে গ্রূপ লীগের শেষের দিকে লাগাতার সুযোগ দেওয়া হল, তাতে সেমিফাইনালে এই জায়গায় রবি শাস্ত্রী-বিরাট কোহলি জুটি আর অন্য কাউকে দিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষায় যাবেন না বলেই মনে করা হচ্ছে।

এরপর গুরুত্বপূর্ণ ৫ নম্বর – এখানে প্রথমদিকে কেদার যাদবকে খেলানো হলেও, পরে স্লো ব্যাটিংয়ের জন্য বাদ পড়েন তিনি। তাঁর জায়গায় দলে এসেছেন দীনেশ কার্তিক। তবে এসে সেভাবে সুযোগ পান নি, আর পেলেও আহামরি কিছু করেননি। ফলে ৫ নম্বরে আবার কেদার যাদবকে ফেরানোর পরামর্শ দিচ্ছেন সৌরভ গাঙ্গুলির মত প্রাক্তনীরা। কেননা কেদার যাদবের আইপিএলের ফর্ম দীনেশ কার্তিকের থেকে ভালো। গত এক বছরে দীনেশ কার্তিকের থেকে অনেক বেশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছেন। তাছাড়া প্রয়োজনে ২-৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে অফ-স্পিনটাও করে দিতে পারবেন। ফলে, ৫ নম্বরে দীনেশ কার্তিক নন, বিশেষজ্ঞরা চাইছেন কেদার যাদবকেই।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

৬ নম্বরে – হার্দিক পান্ডিয়া। গোটা বিশ্বকাপ জুড়েই ব্যাটে-বলে কোহলিকে যতখানি ভরসা দিয়েছেন, তাতে অন্য কারোর নাম ভাবার দরকার পড়ছে না। প্রয়োজনে ব্যাটিং অর্ডারে তুলে পিঞ্চ হিটার হিসাবেও ব্যবহার করা যেতে পারে তাঁকে। পান্ডিয়ার পরে ৭ নম্বরে আসবেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। ব্যাটিং অনেকটাই স্লো হয়ে গেছে, কিন্তু এখনও হাতে বিগ হিট আছে। আর অভিজ্ঞতার জোরে অন্যতম সেরা ফিনিশার। তাই যতই বিতর্ক হোক, ধোনিই দলের প্রথম কিপার হিসাবে খেলবেন আর ৭ নম্বরে আসবেন।

এরপর ৮ নম্বরে আসা উচিত বাঁহাতি স্পিনার রবীন্দ্র জাদেজার। কুলদীপ যাদবের আগে জাদেজাকে দলে চাইছেন সৌরভরা, কারণ তাঁর ব্যাটিংয়ের হাত। শুধুমাত্র বোলিং দক্ষতায় দেখতে গেলে কুলদীপ অনেকটাই এগিয়ে, কিন্তু ইংল্যান্ডের উইকেট ক্রমশ স্লো হয়ে আসছে, সেখানে জাদেজার স্লো স্পিনও কম কার্যকর হবে না। অতিরিক্ত ভরসা হিসাবে তাঁর হাতে কিনটি বড় শট আছে, যা বাড়তি স্বস্তি দেবে ভারতকে। জাদেজার পর ৯ নম্বরে জায়গা পাওয়া উচিত মহম্মদ শামির। এই জায়গায় বিতর্ক হতেই পারে শামি না ভুবনেশ্বর কুমার – কাকে খেলবেন কোহলি?

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ভুবনেশ্বরের আগে শামির সুযোগ পাওয়া উচিত। ভুবনেশ্বরের ডেথ ওভারে বোলিং তাঁকে এগিয়ে রাখলেও, তিনি চোট পাওয়ার আগের সেই চেনা ছন্দে নেই। উল্টোদিকে, নতুন বলে শামি যে বলতে করছেন, যেভাবে রান চেক করেও উইকেট তুলছেন – সেই উইকেট টেকিং এবিলিটিই তাঁকে এগিয়ে রাখবে। কেননা, এই তৈরী হওয়া চাপের সুযোগ নিয়ে মিডল ওভারগুলোতে ফুল ফোটাচ্ছেন – হার্দিক পান্ডিয়া বা স্লো স্পিনাররা। আর তাই, ভুবনেশ্বর কুমারের জায়গায় দলে জায়গা পাওয়া উচিত মহম্মদ শামির।

এরপর, ১০ আর ১১ নম্বরে স্পিন ও পেস বোলিংয়ে বিরাট কোহলির দুই সেরা অস্ত্র যুজবেন্দ্র চাহাল ও জসপ্রীত বুমরাহ। বুমরাহর জায়গা নিয়ে দ্বিতীয় কোনো শব্দ খরচ করার জায়গা নেই, তবে অনেকে চাইছেন চাহালের জায়গায় দলে আসুন কুলদীপ। কিন্তু যেহেতু রবীন্দ্র জাদেজা বাঁ-হাতি স্পিনার হিসাবে দলে জায়গা পেয়ে যাচ্ছেন, তাই আরেকজন বাঁ-হাতি স্পিনারের জায়গায় ভেরিয়েশন আনতে ডানহাতি যুজবেন্দ্রর সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। আর তাই সবমিলিয়ে বোলিংয়ে অনেক বৈচিত্র থাকায় অনেক হিসেবে কোষেই এই কম্বিনেশনে আসা উচিত শাস্ত্রী-কোহলির বলে মত সৌরভ গাঙ্গুলির মত প্রাক্তনীদের।

সুতরাং ভারতের সাম্ভাব্য প্রথম একাদশ হতে পারে এইরূপ –
১. কেএল রাহুল
২. রোহিত শর্মা
৩. বিরাট কোহলি
৪. ঋষভ পন্থ
৫. কেদার যাদব
৬. হার্দিক পান্ডিয়া
৭. মহেন্দ্র সিং ধোনি
৮. রবীন্দ্র জাদেজা
৯. মহম্মদ শামি
১০. যুজবেন্দ্র চাহাল
১১. জসপ্রীত বুমরাহ

Top
error: Content is protected !!