এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ফের একবার নিপা ভাইরাসের আতঙ্ক কেরলে, নমুনা মিলেছে পড়ুয়ার দেহে

ফের একবার নিপা ভাইরাসের আতঙ্ক কেরলে, নমুনা মিলেছে পড়ুয়ার দেহে

এ যেন বিনা মেঘে বজ্রপাত। এবার নিপা ভাইরাসের আতঙ্ক গ্রাস করল গোটা দক্ষিণ ভারতকে। সূত্রের খবর, এই সর্বনাশা ভাইরাসের নমুনা কেরলের এক 23 বছরের পড়ুয়ার দেহে মেলায় তীব্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। আর যে ঘটনায় এখন আতঙ্কে রয়েছেন অনেকেই। কিন্তু ঠিক কী কী কারণে এই নিপা ভাইরাস শরীরে প্রবেশ করতে পারে?

আর এ থেকে প্রতিকারের উপায়ই বা কি! এখন তা নিয়েই আলোচনায় বসেছে বিভিন্ন মহল। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের তরফে জানানো হয়েছে যে, কোনো ব্যক্তির শরীরে যদি এই নিপা ভাইরাস প্রবেশ করে, তাহলে তার জ্বর, মাথাব্যথা, বমি, পেশিতে ব্যথা, গলায় যন্ত্রনা এই সমস্ত উপসর্গ থাকবে।

হাতের মুঠোয় আরও সহজে প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে যোগ দিন –

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

শুধু তাই নয়, এনসেফ্যালাইটিস, নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট এমনকি 24 থেকে 48 ঘণ্টার মধ্যে এই রোগে আক্রান্ত রোগীরা কোমায় পর্যন্ত চলে যেতে পারে বলে দাবি চিকিৎসকদের। কিন্তু কি থেকেই নিপা ভাইরাস মানুষের শরীরে প্রবেশ করে? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিপা আক্রান্ত বাদুড় এবং অসুস্থ শুয়োরের শরীর থেকেই এই ধরনের ভাইরাস ছড়ায়।

তাহলে কি এই ভাইরাস শরীরে প্রবেশ করা থেকে রুখতে কোনো প্রতিকারের ব্যবস্থা নেই! জানা গেছে, যে সমস্ত এলাকায় অসুস্থ শুয়োর রয়েছে, সেই সমস্ত এলাকা থেকে দূরে থাকতে হবে। এছাড়াও উঁচু গাছের ফল বা যে সমস্ত গাছে বাদুর থাকে, সেই সমস্ত গাছের ফল পরিহার করতে হবে। আবার এই রোগ থেকে মুক্তি পেতে চিকিৎসকদের অনেকে তাল থেকে দূরে থাকারও পরামর্শ দিচ্ছেন।

Top
error: Content is protected !!