এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূলকে পাল্টা চালে মাত দিলো বাবুল, অস্বস্তি বাড়লো ঘাসফুল শিবিরের

তৃণমূলকে পাল্টা চালে মাত দিলো বাবুল, অস্বস্তি বাড়লো ঘাসফুল শিবিরের

বিজেপির হলেও বাংলায় জয় শ্রীরাম ধ্বনি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার কারণ হলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুনতে অবাক লাগলেও এই মুহূর্তে এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক মহল। প্রসঙ্গত ভোটের প্রচারে গিয়ে মেদিনীপুরে মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ির সামনে কিছু বিজেপি সমর্থক জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেন যার জেরে মুখ্যমন্ত্রী গাড়ি থামিয়ে তাদের দিকে তেড়ে গিয়ে বলেন,- আয় আয় পালাচ্ছিস কেন? হরিদাস সব! মমতাকে গালাগালি দিচ্ছে। আর তারপরেই সেইসব বিজেপি সমর্থকদের গ্রেপ্তার করা হয়।

আর এর পরে তৃণমূল নেতাদরে প্রচারেও শোনা গেছে জয় শ্রীরাম ধ্বনি। তার পর ভোট মিটে যাবার পরে বাংলায় 18 টি আসন জিতে বিজেপি বাড়তি অক্সিজেন পায়। আর যার জেরেই গ্রেফতারের ভয়কে উপেক্ষা করে ফের মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ির সামনে জয় শ্রীরাম ধ্বনি উঠে।

হাতের মুঠোয় আরও সহজে প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে যোগ দিন –

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

বাংলায় তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ির সামনে ফের জয় শ্রীরাম ধ্বনি দিতে দেখা যায়।ফের গাড়ি থেকে নেমে তাদের দিকে তেড়ে যান মুখ্যমন্ত্রী। শুধু তাই নয়, তিনি দাবি করেন আমার খাচ্ছে আমার পড়ছে। শালা ক্রিমিনাল, গুজরাটের সব হবে বাংলায় হবে না। আর তারপর যারা স্লোগান দিয়েছিল তাদের বিরুদ্ধে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এদিকে এরপরে বিজেপি নেতা অর্জুন সিং দাবি করেন ১০ লক্ষ জয় শ্রীরাম লেখা পোস্ট কার্ড পাঠানো হবে মুখ্যমন্ত্রীকে। এই নিয়ে অবশ্য পিছিয়ে থাকেনি তৃণমূল। পাল্টা দিয়ে তাদের দাবি ছিল তারাও প্রধানমন্ত্রীকে জয় হিন্দ, জয় বাংলা, মা মাটি মানুষ জিন্দাবাদ, মমতা ব্যানার্জি জিন্দাবাদ, এই লিখে চিঠি পাঠাবে। সাথেই সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক বিজেপি নেতাদের হোয়াটস আপ নাম্বার ভাইরাল করে দেওয়া হয় এবং বলা হয় সেই নাম্বারে জয় হিন্দ জয়, বাংলা মা মাটি মানুষ, তৃণমূল কংগ্রেস জিন্দাবাদ, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জিন্দাবাদ এইসব লিখে পাঠাতে। এদের মধ্যে বাবুল সুপ্রিয়কেও ঠিক একই ভাবে হোয়াটসঅ্যাপে মেসেজ পাঠানো হয়। কিন্তু ফল হয়ে যায় উল্টো।

এর আগে ট্যুইটারে তিনি দুটি স্ক্রিনশট শেয়ার করে লেখেন, ‘#TMchhi নে হমারে পার্সোনাল নম্বর্স কো ইন্টারনেট পর লীক কর অপনে #TMchhi সমর্থকো কো নির্দেশ দিয়া হ্যা কি ‘মমতা ব্যানার্জী জিন্দাবাদ’ মেসেজ করে। কোই বাত নহি, হম তৈয়ার হ্যা।’

এর ঠিক ২ ঘন্টা পরে তিনি আরও একটি ট্যুইট করেন, সেখানে লেখেন, ‘যারা আমাকে মোবাইলে বা ফেসবুকে ‘জয় হিন্দ জয় বাংলা’ জানাচ্ছেন তাদের বলি ধন্যবাদ ও ‘Same to You’! ‘হিন্দ’ আর ‘বাংলা’ তো আমার আপনার সবার ! আপনাদের জন্য রইলো অনেক ভালোবাসা আর দিদিমনিকে জানাই ‘জয় শ্রী রাম’।’

আর এর ফলে রাজনৈতিক মহলের দাবি বাবুল সুপ্রিয় তৃণমূলকে দিল দিল কেননা তৃণমূলের দাবি ছিল না ধারনা ছিল জয় হিন্দ জয় বাংলা বলে যেমন নেত্রী জয় শ্রীরাম বলে প্রতিক্রিয়া দিচ্ছেন ঠিক তেমনি জয় বাংলা জয় হিন্দ বললেও বিজেপি নেতারা কিভাবে প্রতিক্রিয়া দেবেন কিন্তু সেই দাবি সেই ধারণা ধোপে টিকলো না ফলে এখন নতুন করে আবার ভাবনা শুরু হলো তৃণমূলের এমনটাই দাবি রাজনৈতিক মহলের

 

 

হাতের মুঠোয় আরও সহজে প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে যোগ দিন –

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

Top
error: Content is protected !!