এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা

বিগ ব্রেকিং নিউজ – এই সপ্তাহের মধ্যেই কলকাতা পুরসভার দখল নিতে চলেছে বিজেপি?

লোকসভা নির্বাচনের পরেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখানোর ধুম পরে গেছে গোটা রাজ্য জুড়ে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের একাধিক বিধায়ক তৃণমূল, বামফ্রন্ট বা কংগ্রেস ছেড়ে যোগ দিচ্ছেন বিজেপিতে। সেই বিধায়কদের সঙ্গে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিচ্ছেন একাধিক কাউন্সিলরও - ফলে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু পুরসভার দখল নিয়েছে বিজেপি। আজ দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে প্রাক্তন তৃণমূল

আন্দোলন বন্ধের ‘অনুরোধ’ নিয়ে উস্থিকে শিক্ষামন্ত্রীর ফোন, ২৪-এর আন্দোলন নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত

দীর্ঘদিন ধরেই রাজ্যের হাজার হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের বেতন বৈষম্য নিয়ে লড়াই করে চলেছে প্রাথমিক শিক্ষকদের সংগঠন উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন। এর আগে কলকাতায় মহামিছিল থেকে ধর্ণা বা আইনি লড়াই - শিক্ষকদের পিআরটি স্কেলের দাবি আদায়ের জন্য কোনো পথই বাকি রাখেনি সংগঠনটি। এমনকি নিজেদের দাবি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের দৃষ্টি

উস্থির আন্দোলন বন্ধ করতে চেয়ে শিক্ষামন্ত্রীর ‘রহস্যজনক’ ফোন, শিক্ষক আন্দোলন নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত

দীর্ঘদিন ধরেই রাজ্যের হাজার হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের বেতন বৈষম্য নিয়ে লড়াই করে চলেছে প্রাথমিক শিক্ষকদের সংগঠন উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন। এর আগে কলকাতায় মহামিছিল থেকে ধর্ণা বা আইনি লড়াই - শিক্ষকদের পিআরটি স্কেলের দাবি আদায়ের জন্য কোনো পথই বাকি রাখেনি সংগঠনটি। এমনকি নিজেদের দাবি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের দৃষ্টি

ছাড়ছেন না হুঙ্কার, এড়িয়ে চলছেন সংবাদমাধ্যমকে, দিদির “কেষ্টা”র হাবভাবে বিজেপি যোগের জল্পনা, কি বললেন অনুব্রত

একসময় চড়াম চড়াম ঢাক, গুড় বাতাসা এবং নকুলদানার দাওয়াই দিয়ে খবরের শিরোনামে আসতে দেখা গেছে তাকে। কিন্তু লোকসভা ভোটে দলের ভরাডুবির পর সেই বীরভূম জেলার "কুকথার স্টার পারফরমার" বলে পরিচিত অনুব্রত মন্ডলের হম্বিতম্বি তেমনভাবে চোখে পড়ছে না কারোরই। একসময় যিনি বিরোধী নেতাদের উদ্দেশ্যে চোখ রাঙিয়ে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করতেন এবং তাকে কেন্দ্র

লোকসভা ভোটের বিপর্যয় থেকে শিক্ষা নিয়ে কি এবার ফের সিপিআইএম কংগ্রেসের জোট হচ্ছে রাজ্যে, জোর জল্পনা

গত 2016 সালে বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের বিরুদ্ধে তারা উভয়ই জোট করেছিল। কিন্তু সেই ভাবে তারা তেমন কোনো সাফল্য না পেলেও এই জোট যে খুব একটা খারাপ সাড়া দেয়নি, তা নিয়ে নানা আলোচনাও হয়েছিল। আর সেইমতো সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনেও বাংলায় শাসক দল তৃণমূল ও বিরোধী দল বিজেপির বাড়বাড়ন্তের রুখতে তৃতীয়

সোশ্যাল মিডিয়ায় তৃণমূল বিধায়কের আক্ষেপ, বিজেপি যোগের জল্পনা তুঙ্গে

লোকসভা ভোটে রাজ্যের বেশিরভাগ জেলায় তৃণমূলের ভরাডুবি হওয়ার পাশাপাশি কোচবিহারেও তৃণমূলের হার অত্যন্ত লক্ষণীয়। যেখানে পরেশ অধিকারীকে তৃণমূল নেত্রী প্রার্থী করে জেতানোর কথা বললেও প্রাক্তন যুব তৃণমূল নেতা তথা বর্তমান বিজেপি নেতা নিশীথ প্রামাণিক এই কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রে দাঁড়িয়ে জয়লাভ করেন। আর ফলাফল পর্যালোচনায় দেখা যায় যে কোচবিহারের বেশিরভাগ বিধানসভাতেই

উষসী কাণ্ডে অভিযুক্তদের দিন দুয়েকের মধ্যেই মিলল জামিন, মুক্তি নিয়ে উঠছে প্রশ্ন

কিছুদিন আগেই রাত্রিবেলা কলকাতার রাজপথে প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া উষসী সেনগুপ্তকে হেনস্তার ঘটনায় সর্বত্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। জানা যায়, গত সোমবার রাত 12 টা নাগাদ একটি ক্যাবে করে যখন উষসী সেনগুপ্ত নিজের বাড়ি ফিরছিলেন, সেই সময় এক্সাইড মোড় থেকে এলগিন রোডের দিকে তার গাড়ি যেতেই কয়েকজন বাইক আরোহী তাদের গাড়ি অনুসরণ

এবার তৃণমূলের হাতছাড়া হতে চলেছে এই জেলা পরিষদ, অস্বস্তি ক্রমশ বাড়ছে

লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকেই রাজ্যের তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির উত্থানের পর একের পর এক পৌরসভার কাউন্সিলর এবং বিধানসভার বিধায়করা বিজেপিতে যোগদান করতে শুরু করেন। যার জেরে রাজ্যের অনেক বিধানসভা এবং অনেক পৌরসভাতেই গেরুয়া রং লেগে যায়। কিন্তু এবার শাসকদলের অস্বস্তিকে প্রবলভাবে বাড়িয়ে দিয়ে তৃণমূল পরিচালিত দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদকে

পঞ্চায়েত, পুরসভার পর আরও বড় কিছুর লক্ষ্যে নামল বিজেপি, আশঙ্কার কালো মেঘ তৃণমূলে

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলার 42 টি আসনই দখল করার ডাক দিয়েছিলেন। কিন্ত গত 2014 সালে তৃণমূল বাংলা থেকে 34 টা আসন পেলেও এবার তাদের দখলে এসেছে মোটে 22 টি আসন। অন্যদিকে বিজেপি এবারে শাসকদলের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলে 18 টি আসন নিজেদের দখলে রেখেছে। আর এই ফল প্রকাশের

এনআরএস কান্ডের জের,নেত্রীর নির্দেশে পদ হারালেন তৃণমূলের হেভিওয়েট ডাক্তার নেতা

এনআরএসের চিকিৎসক পরিবহ মুখোপাধ্যায়কে মারধর এবং তারপর সেখানকার মেডিকেল চিকিৎসকদের লাগাতার ধর্মঘটে রাজ্যের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা শিকেয় উঠতে শুরু করেছিল। পরে দফায় দফায় সরকারের পক্ষ থেকে সমস্যা সমাধানের জন্য উদ্যোগী হলেও তা খুব একটা ফলপ্রসূ হয়নি। পরবর্তীতে অবশ্য মুখ্যমন্ত্রীর সাথে সেই মেডিক্যাল চিকিৎসকদের আলোচনায় অবস্থার উন্নতি হয়েছে। তবে এবার আরজিকর মেডিকেল

Top
error: Content is protected !!